তেজগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা

EIIN Number : 108522

Notice

ব্যবহারিক পরীক্ষার সময়সূচি (অর্ধবার্ষিক-প্রাক নির্বাচনী)-২০২২ | গ্রীষ্মকালীন সময়সূচী (৯ই মে থেকে কার্যকর) | শিক্ষার্থী বেতন আদায়ের পূর্ণ বিজ্ঞপ্তি | ২০২২ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার সময়সূচি | ২য় শ্রেণি পরীক্ষা (অর্ধ বার্ষিক, প্রাক নির্বাচনি) - ২০২২ | শিক্ষার্থী বেতনের আদায়ের বিজ্ঞপ্তি | ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফরমপূরণের বিজ্ঞপ্তি | ১ম শ্রেণি পরীক্ষা (অর্ধ বার্ষিক,প্রাক নির্বাচনী)-২০২২ | 'আমার ঘরে আমার স্কুল' 07 March 13-March 17 | 2022 সালের এস.এসসি. পরীক্ষার্থীদের জন্য ১৫ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ। | ২০২২ শিক্ষাবর্ষে ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ। | আমার ঘরে আমার স্কুল অনুষ্ঠানের ক্লাস রুটিন: ৬-১০ মার্চ-২০২২ | ২৬ শে মার্চ উপলক্ষ্যে প্রতিযোগিতা সমূহ | ‘ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ’ ২০২২ দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ । | ২০২২ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের জন্য ১৪তম অ্যাসাইনমেন্ট (বাংলা ও ইংরেজী ভার্সন) বিতরণ। | ৩য় থেকে ৫ম শ্রেণি (৩য় সপ্তাহ) বাড়ির কাজ | আমার ঘরে আমার স্কুল অনুষ্ঠানের ক্লাস রুটিন | ২০২২ শিক্ষাবর্ষের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট বিতরণ। | পূর্ণ সংশোধিত দিবা শাখার অনলাইন ক্লাস রুটিন | ২০২২ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (১৩তম সপ্তাহ) বিতরণ। | ৩য় থেকে ৫ম শ্রেণি (২য় সপ্তাহ) বাড়ির কাজ | ২০২২ শিক্ষাবর্ষের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (৩য় সপ্তাহ) বিতরণ। | ‘শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত প্রতিযোগিতার ফলাফল | ২০২২ শিক্ষাবর্ষের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (২য় সপ্তাহ) বিতরণ | স্বাধীনতা দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২২ | ৩য় থেকে ৫ম শ্রেণি (১ম সপ্তাহ) বাড়ির কাজ | শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২২ উদযাপন উপলক্ষ্যে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত প্রতিযোগিতা সমূহ | ২০২২ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (একাদশ সপ্তাহ) বিতরণ। | শিক্ষাবর্ষের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (১ম সপ্তাহ) বিতরণ। | ২০২২ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (দশম সপ্তাহ) বিতরণ সংক্রান্ত। | বিজ্ঞপ্তি - এসএসসি পরীক্ষার্থী ২০২২ | ২০২২ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট (নবম সপ্তাহ) বিতরণ সংক্রান্ত | Online Routine (Morning Shift) 2022 | Morning Shift Class 5 Online Routine | আগামী ২২শে জানুয়ারি থেকে ৬ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল বন্ধ থাকবে । বিস্তারিত। | এসএসসি পরীক্ষার্থী ও ১০ম শ্রেণির অনলাইন ক্লাস রুটিন | Day Shift Class 8 Section C,D Revised online routine | online routine day shift class 9 D E | ২০২২ শিক্ষাবর্ষে শীতকালিন সময়সূচি (উভয়) | অভিনন্দন এস এস সি পরীক্ষার ফলাফল-২০২১ | প্রথম অপেক্ষমান তালিকা থেকে নির্বাচিত ভর্তি তালিকা | Blank-Vaccine-Card | You can pay school tuition fees & other dues for the months of April -June from 28 to 30 June 2021 through Nagad/Rocket/bKash/Others cards. (Class 3-10) |

Top of Form

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস

তেজগাঁও পলিটেকনিক  হাই স্কুল থেকে তেজগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। এর সাথে আরেকটি নাম আরেকটি ব্যঞ্জনা জনাব নূর মোহাম্মদ। যুগে যুগে যাদের পদধুলিতে ধন্য এদেশ তিনি তাদেরই একজন। এ বিদ্যালয়ের কথা লিখার আগে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করতে হয় এ মহান  ব্যক্তিত্বকে।

আরও স্মরণ করতে হয় স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রথম শহীদ লুৎফর রহমান-কে যিনি ১৯৬৯ সালে এ বিদ্যালয় থেকেই এসএসসি পাস করেছিলেন। লুৎফর রহমানসহ এ বিদ্যালয়ের অসংখ্য ছাত্র যাদের রক্ত ও সাহসিকতার বিনিময়ে আজ এদেশ স্বাধীন তাদের সবাইকে সশ্রদ্ধ সালাম।

তেজগাঁও পলিটেকনিক হাই স্কুল। বেড়ার ঘর, মাটির মেঝে, শিকবিহীন জানালা, কাঠের টুল। তবুও বাংলাদেশের সেরা প্রতিষ্ঠান। ষাট এর দশকে এমন কোনো বৎসর খুঁজে পাওয়া যাবে না যে বৎসর এসএসসি পরীক্ষায় এ বিদ্যালয় থেকে সম্মিলিত মেধা তালিকায় স্থান পায় নাই। আর আন্তঃস্কুল ফুটবলে প্রতিবছর চ্যাম্পিয়ন। ১৯৭৮ সালে এ বিদ্যালয়ের তিনজন ছাত্র সেরা স্কাউটের মর্যাদা লাভ করে।

তেজগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। ১৯৮১ সালে এর জাতীয়করণ হলেও ১৯3৫ সাল থেকে এর যাত্রা শুরু। তখন একজন প্রধান শিক্ষক ও দুজন সহকারী প্রধান শিক্ষকের অধীনে তেজগাঁও পলিটেকনিক হাই স্কুলের বালক ও বালিকা শাখা চলতো। ১৯৫৫ সালে স্কুলের জন্য ভাওয়াল রাজার দানকৃত ২২ বিঘা জমি কোনো ক্ষতিপূরণ ছাড়াই তৎকালীন সরকার হুকুম দখল করে নেয়। স্কুল নেই, আছে শুধু কয়েকজন ছাত্র, ম্যানেজিং কমিটি এবং কয়েকজন শিক্ষক। বিদ্যালয়ের এ ক্রান্তিলগ্নে ভাসমান নাম সর্বস্ব স্কুলটির দায়িত্বভার গ্রহণ করেন প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক জনাব নূর মোহাম্মদ। তিনি বিভিন্ন জায়গায় স্কুলের একটু জায়গার জন্য ধর্ণা দিতে শুরু করলেন। একাজে তাঁকে সহযোগিতা করেন মরহুম ডা. টি আহম্মদ এবং মরহুম দোহা। পাকিস্তানের তৎকালীন স্পিকার মরহুম তমিজউদ্দিন খানের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় অবশেষে তিনি পি.আই এর খালি জায়গায় স্কুল করার অনুমতি পেলেন। কিছুদিন পর আজম খান পাকিস্তানের গভর্নর হলে স্কুলের মাথায় নেমে আসে এক মহাবিপদ সংকেত। ২৪ ঘন্টা সময় দেওয়া ছিল স্কুল সরিয়ে নিতে। তিনি আবারও ছুটলেন স্কুলটিকে বাঁচানোর জন্য। এসময় আবার পাশে এসে দাঁড়ালেন তমিজ উদ্দিন খান সাহেব। তিনি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের কথা গভর্নরকে বোঝাতে সক্ষম হলেন। বেঁচে গেল স্কুল। এর সাথে তৎকালীন জেনারেল ওমরাও খানের নাম শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করতে হয়। সেই থেকে শুধুই সামনের দিকে এগিয়ে গেছে স্কুল, স্কুলের অবস্থান সম্পর্কে আর কাউকে ভাবতে হয়নি। বর্তমানে স্কুলটিতে প্রভাতি শিফটে বালিকাদের এবং দিবা শিফটে বালকদের পাঠদান করা হয়।

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস
Related Topics